WHSC news

Nepal Should Be Declared Hindu State: BJP Leader Dr. Swamy.

Influential leader of Ruling Bharatiya Janta Party and member of Lok Sabha Dr. Subramanian Swamy has demanded to declare Nepal Hindu State. Addressing two day international conference in Kathmandu, Dr. Swamy said that due to its geography and history, India and China are also positive to make Nepal Hindu State. Jointly organized by World Hindu Association and World Hindu Federation, Dr. Swamy has left Nepal following addressing two day conference. He also paid a courtesy call to Prime Minister K.P. Sharma Oli at his residence Baluwatar. He discussed the matter of mutual interest with Prime Minister Oli. Another BJP leader and former member of Lok Sabha Tarun Bijaya, who is regarded as strong Hindu leader, also separately met prime minister Oli. Bijaya is in favor of declaring Nepal as Hindu State reports Deshsanchar. Source:.spotlightnepal.com

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ করতে সত্যিকারের অসাম্প্রদায়িক সরকার প্রয়োজন।

“আজবাংলা ডট ইন‍” অনলাইন পত্রিকার প্রধান সম্পাদক প্রভাকর রায় এবং “ইউথিং এ্যাকশান” সংগঠনের রাজ্য সভাপতি (পশ্চিমবাংলা) দিব্যতনয় জোয়ারদার আজ সকালে আমাদের জিবসান কোস্পানীর অফিসে আসেন এবং বাংলাদেশ প্রসঙ্গে দীর্ঘ সময় আলোচনা করেন। এসময় প্রভাকর রায় বলেন, ১৭ই জুলাই আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিকট বাংলাদেশের মানবাধিকার কর্মী প্রিয়া সাহার অভিযোগ প্রসঙ্গে সাম্প্রতিক বাংলাদেশে যে কাদা ছোড়াছুড়ি চলছে আমি তার তীব্র নিন্দা জানাই। তিনি আরও বলেন, প্রিয়া সাহার অভিযোগের যথেষ্ট সত্যতা রয়েছে, ভারতের বিভিন্ন রাজ্য পরিদর্শন করলে এর প্রমাণ পাওয়া যাবে। প্রিয়া সাহা বলেছেন, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ৩ কোটি ৭০ লাখ লোক নিখোঁজ রয়েছেন। আমি মনেকরি ভারতের বাংলা অধ্যুষিত অঞ্চল গুলোতে খোঁজ নিলে এর চেয়ে বেশি পরিমান বাংলাদেশী লোক পাওয়া যাবে, যারা ১৯৪৭ সালের পর মৌলবাদী মুসলমানদের অত্যাচার কারণে দেশ ছেড়ে ভারতে পাড়ি জমাতে বাধ্য হয়েছিল। তারা এখনও ভারতের মাটিতে উদ্বাস্তু হিসাবে বসবাস করছে। মানবাধিকার কর্মী প্রিয়া সাহার অভিযোগকে সময়োপযোগী অভিযোগ হিসাবে আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের সমস্ত সংখ্যালঘু সংগঠন এমনকি ভারতের সমস্ত হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের উচিত প্রিয়া সাহার পাশে দাড়াঁনো। বাংলাদেশের সংখ্যালঘুরা খুবই ক্রান্তিকাল পার করছে। বর্তমানে বাংলাদেশে তথাকথিত অসাম্প্রদায়িক সরকার ক্ষমতায় থাকলেও সংখ্যালঘু নির্যাতন কখনো বন্ধ থাকেনি বরং সংখ্যালঘু নির্যাতন অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে কয়েকগুণ বেড়ে গেছে। তাই এই জুলুমবাজ সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে নতুন, গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িক সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে না পারলে বাংলাদেশে কখনোই সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ হইবে না। ইউথিং এ্যাকশান কমিটির সভাপতি দিব্যতনয় জোয়ারদার বলেন, আমি বেশ কয়েকবার বাংলাদেশ সফর করেছি এবং বাংলাদেশর বিভিন্ন হিন্দু সংগঠনের সাথে কথা বলেছি। সংগঠন গুলোর মাধ্যমে জানতে পারলাম, বর্তমান সরকারের আমলে হিন্দু নির্যাতন বহুগুণে বেড়ে গেছে। তারা আরও জানিয়েছন যে, বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের সবচেয়ে বড় সংগঠন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ সংখ্যলঘুদের কল্যাণে কাজের পরিবর্তে সবসময় সরকারের তোষামোদ ও ভাবমূর্তী রক্ষায় ব্যস্ত থাকে। তারা সংখ্যালঘু নির্যাতনের সঠিক তথ্য কখনোই বহিঃবিশ্বে তুলে ধরেনি। তাদের কার্য়ক্রম দেখলে যে কারও মনে হবে, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ সরকারের ভাবমূর্তি রক্ষার টেন্ডার নিয়েছে ! এজন্যই তারা প্রিয়া সাহাকে বহিঃস্কার করেছেন।  উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ল্ড হিন্দু স্ট্রাগল কমিটির সভাপতি শিপন কুমার বসু, জিবসান কোস্পানীর ম্যানেজার তপ প্রকাশ সানা, ওয়ার্ল্ড হিন্দু স্ট্রাগল কমিটির প্রধান গণমাধ্যম সমন্বয়ক নিহার রঞ্জন বিশ্বাস।  Reported by Nihar Ranjan Biswas, Chief media Coordinator of WHSC

Bangladesh needs a truly secular government to stop minority oppression.

Pravhakar Roy, chief editor of “Aajbangla.in” online  Bangla newspaper ” and Dibyatanay Joardar, state (WB) president of the “Youthing Action” organization came to our GIEBCN company office in this morning and had a long discussion on the topic of Bangladesh. At this time, Prabhakar Roy said, “I strongly condemn the recent mud raiding in Bangladesh in connection with the accusation of human rights activist Priya Saha, who complained to the US President Donald Trump about Hindu persecution of Bangladesh on 17th July,2019. She also said that the allegations of Priya Saha are substantially true, that if you visit different states of India, the evidence will be found. Priya Saha has said that 37 million people in the minority community are missing. If I search in India’s Bengali-dominated areas, there will be more Bangladeshi people who were forced to leave India after 1947, because of the persecution of radical Muslims. They are still living as refugees on Indian soil. Terming the allegation of human rights activist Priya Saha as timely, he said that all minority organizations in Bangladesh and even all Hindu organizations in India should stand with Priya Saha. The minorities of Bangladesh are passing through a very critical period. Even though the so-called secular government in Bangladesh is in power, minority oppression has never stopped, but minority oppression has multiplied more than any other time. Therefore, unless this oppressive government can be removed from power and establish a new, democratic and secular government, minority oppression will never stop in Bangladesh. “I have visited Bangladesh several times and talked to various Hindu organizations in Bangladesh,” said Dibyatanay Joardar, president of the Youthing Action organization. Through the organizations I learned that during the current government, Hindu torture has increased manifold. They also state that the Hindu-Buddhist-Christian Unity Council, the largest minority organization in Bangladesh, is always busy defending the government’s image rather than working for the welfare of the minorities. They have never presented the exact information of minority torture to the world. If anyone looks at their program, the Hindu- Buddhist-Christian Unity Council has tendered to protect the image of the government! That is why they expelled Priya Saha. Shipan Kumer Basu, president of World Hindu Struggle Committee, Tapa Prakash Sana, Manager of the GIEBCN Company and Nihar Ranjan Biswas, chief media coordinator of the World Hindu Straggle Committee were present in this meeting. Reported by Nihar Ranjan Biswas, Chief media Coordinator of WHSC